রাজারহাটে শহীদ রাউফুন বসুনিয়ার ৩৫ তম শাহাদৎ বার্ষিকী পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কুড়িগ্রামের  রাজারহাটে শহীদ রাউফুন বসুনিয়ার ৩৫ তম শাহাদৎ বার্ষিকী পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ( ১৩ ফেব্রুয়ারী )রাজারহাটস্হ পাইকপাড়া গ্রামে অবস্হিত শহীদ রাউফুন বসুনিয়ার কবরে বিভিন্ন রাজনৈতিক ,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

রাউফুন বসুনিয়া (মৃত্যুঃ ১৩ই ফেব্্রুয়ারি, ১৯৮৫) ছিলেন স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সামনে থেকে নেতৃত্বদানকারী অন্যতম নেতা। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক, সমাজবিজ্ঞান শেষ বর্ষের ছাত্র রাউফুন বসুনিয়া ছিল স্বৈরাচারের আতঙ্ক। ১৩ ফেব্রুয়ারী ১৯৮৫ রাত ১১ টার দিকে স্বৈরাচার বিরোধী এক মিছিলে নেতৃত্বদানের সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরী স্কুলের সামনে তৎকালীন সরকার সমর্থক ছাত্র সংগঠন নতুন বাংলা ছাত্র সমাজের গুলিতে নিহত হন।
রাউফুন বসুনিয়া কুড়িগ্রাম জেলা’র রাজারহাট উপজেলা’র পাইকপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম। তিনি একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। মা ফিরোজা বেগম ছিলেন গৃহিণী। রাউফুন পাঙ্গারানী লক্ষী প্রিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও কারমাইকেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা লাভ করেন। তারপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হন। স্নাতক শেষ করে একই বিভাগে স্নাতকোত্তরে ভর্তি হন। ১৯৮৫ সালেই মাস্টার্স পরীক্ষার্থী ছিলেন । বাবা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নজরুল ইসলামের স্বপ্ন প্রায় যখন সত্যি হতে চলেছে, তখনই ঘাতকের তপ্ত বুলেট কেড়ে নেয় তাঁর প্রাণ ।

তথ্য সূত্রঃ উইকিপিডিয়া