স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পিজিএস এর উদ্যোগে ‘জয়ী’ ক্যাম্পেইন এর শুভ উদ্বোধন

।।নিউজ ডেস্ক।।
‘পিরিয়ড কোন লজ্জা নয়’ ‘পিরিয়ড মাতৃত্বের অহংকার’ এই স্লোগান কে সামনে রেখে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পিজিএস এর ‘জয়ী’ পথচলার শুভ সূচনা করা হয়েছে।
উল্লেখ্য যে, পজিটিভ জেনারেশন অব সোসাইটি বাংলাদেশ একটি অরাজনৈতিক, অসাম্প্রদায়িক ও অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন।
সমাজের সুবিধাবঞ্চিত বা অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জীবনমান পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছে তারই ধারাবাহিকতায় রবিবার(৬ সেপ্টেম্বর) বিকাল ০৪ ঘটিকায় কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের একটি প্রত্যন্ত অঞ্চল ও নদীবেষ্টিত এলাকায় অবস্থিত খিতাব খাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এ পজিটিভ জেনারেশন অব সোসাইটি বাংলাদেশ এর আয়োজনে মেয়েদের মাসিক সচেতনামূলক ক্যাম্পেইন ‘জয়ী’ শুভ উদ্বোধন হয়।

উক্ত ইভেন্টটিতে পিজিএস এর চেয়ারম্যান ও ফাউন্ডার জয়তূর্য চৌধুরী এবং বাংলাদেশ প্রধান সমন্বয়ক ঝর্ণা চৌধুরী এর সার্বিক সহযোগিতা ও দিকনির্দেশনায় ৪০ জন নারীদের মাঝে নেপকিন ও মাস্ক বিতরণ করার পাশাপাশি সচেতনতামূলক আলোচনা করা হয়।

হাসান আলী তার বক্তব্যে বলেন, একজন নারী বা মা মাসিকের সময় সচেতন না হওয়ায় বিয়ের পর তারা বাচ্চা ধারণ করতে সক্ষম হচ্ছে না এবং এক পর্যায়ে তাদের স্বামীও তাদেরকে ডিভোর্স দিতে বাধ্য হচ্ছে তাই মাসিক বা পিরিয়ডের সময় লজ্জা না করে প্রয়োজনীয় স্যানিটারি ন্যাপকিন টি সংগ্রহ করে ব্যবহার করা প্রত্যেক টি নারীর জন্য বাঞ্ছনীয়।
রংপুর বিভাগীয় সিনিয়র সদস্য আবু সাইদ বলেন, পিজিএস একটি সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ও অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কারণ এ সংগঠন কারও কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নেয় না বরং সংগঠনের চেয়ারম্যান স্যারের নিজস্ব অর্থায়নে ও সাধ্যের মধ্যেই আমরা অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন করে থাকি এবং তিনি তার বক্তব্যে আরও বলেন পিরিয়ড মানেই গর্ভধারণ ও পিরিয়ড ছাড়া কোন নারী সন্তান- সন্ততি জন্মদান দিতে পারে না তাই পিরিয়ডের প্রতি প্রত্যেক টি নারী কে গুরুত্ব দিতে হবে।
কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সদস্য খাদিমুল ইসলাম সাইফুল বলেন, পিরিয়ডের সময় আমাদের মা ও বোনেরা যে ন্যাকড়া বা পুরোনো কাপড় ব্যবহার করে তা পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন না থাকায় ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে যা এক পর্যায়ে ইনফেকশন জনিত কারণে অল্প বয়সী মেয়েদের মূত্রনালীর সংক্রমণ সৃষ্টি হয়। এজন্য এরকম পরিস্থিতির হাত থেকে রক্ষা পেতে হলে অবশ্যই পিরিয়ড কালীন সময়ে পরিষ্কার থাকতে হবে এবং কোন লজ্জা না পেয়ে নিকটস্থ বাজার বা দোকান থেকে স্যানিটারি ন্যাপকিন সংগ্রহ করে ব্যবহার করতে হবে ও পাশাপাশি নিজেকে নিরাপদে রাখতে হলে অবশ্যই সচেতনতা সৃষ্টি করা প্রয়োজন।

এ সময় অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপস্থিত ছিলেন, মাসুদ, ইমরান, আতিক, নবীন, লাকিবুজ্জামান, রাজু, সাদ্দাম হোসেন রিপন,শহীদ, আরিফ হুসাইন, জান্নাতুল প্রমুখ।