রাজারহাটে প্রাণনাশের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন ব্যবসায়ীর

বিশেষ প্রতিনিধি:
রাজারহাটে জমি-জমা সংক্রান্ত কোন্দলের জের ধরে একই পরিবারের তিন পুলিশের বিরুদ্ধে প্রাণনাশের হুমকীর অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ব্যবসায়ী। ০৩ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২ঘটিকায় প্রেসক্লাব রাজারহাটে সংবাদ সম্মেলন করেন ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম ওরফে বুলু মন্ডল। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী বুলু মন্ডল পুলিশের মহাপরিদর্শকসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন তদন্ত না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম ওরফে বুলু মন্ডল বলেন, রাজারহাট উপজেলার মনঃশ্বর গ্রামের নুরুজ্জামান সরকারের পুত্র পুলিশ কন্সটেবল আওরঙ্গজেব কনক (দিনাজপুরে কর্মরত) এবং পুলিশ কন্সটেবল আবুল কালাম আজাদ ও তার বোন এস আই শেফালী বেগম (রংপুর মেট্রো পলিট্রন কর্মরত) তাদের সঙ্গে রাজারহাট উপজেলা বণিক সমিতির দপ্তর সম্পাদক উপজেলা সদরের ব্যবসায়ী ও সদর ইউপির ছাটমল্লিকবেগ (বোতলার পাড়) গ্রামের মৃত আলহাজ্ব আহাম্মদ আলী মন্ডলের পুত্র শফিকুল ইসলাম ওরফে বুলু মন্ডলের মাত্র ৩ শতক জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

বিরোধটি মিমাংসার জন্য কয়েক দফা বৈঠক হলেও তা সমাধান না করে পুলিশ কন্সটেবল আওরঙ্গজেব কনক ও তার লোকজন গত ২৯আগষ্ট শুক্রবার রাত অনুমান ১০ ঘটিকার সময় নিজস্ব ট্রাক কনক পরিবহনে (ঢাকা মেট্রো-ট-১৮-৯৬০০) এসে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে জীবন নাশের হুমকী দেয়। এমনকি তারা বুলু মন্ডলের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লুটপাট করে ভেঙ্গে দেয়ার ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে। এ ঘটনায় শফিকুল ইসলাম ওরফে বুলু মন্ডল পুলিশের মহাপরিদর্শক সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও পুলিশের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ ঘটনার কোন তদন্ত না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে নিরুপায় হয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ ও জনগনের মাঝে বন্ধুত্ব আচরণ করতে বলেছেন, কিন্তু তারা পুলিশ হয়ে তা করছে না। উল্টো ক্ষমতার অপব্যবহার করছে।

এলাকার মানুষজনকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে এলাকার মানুষ ফুঁসে উঠলেও তাদের দাপটে ভয়ে তা প্রকাশ করতে পারছে না। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম ওরফে বুলু মন্ডলের সহধর্মিনী মোছাঃ মঞ্জুয়ারা বেগম, ইউপি সদস্য মোঃ হযরত আলী ও শাহ আলম প্রমূখ।

এ বিষয়ে ৩রা অক্টোবর পুলিশ কন্সটেবল আবুল কালাম আজাদ বলেন, বুলু মন্ডলের সংবাদ সম্মেলন ভিত্তিহীন। বিরোধপূর্ণ ওই জমি আমার না, আমার পিতা নুরুজ্জামানের।