রাজারহাটে খুনের ঘটনা বাড়ছে কেনো?

রাজারহাটে খুনের ঘটনা বাড়ছে কেনো?

Rajarhatbd.com
নাজমুল হুদা সুমন,
বুধবার সকালে কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ঠাটমারী ব্রীজের পাশে জুয়েল নামের এক অটো চালককে হাত-পা বেধে গলা কেটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা।জুয়েলের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার চৌকিদার পাড়ায়।তার পরিবার বলছে জুয়েল কিছুদিন আগে ১ লাখ টাকা ধার করে এই অটো রিকশাটি কিনেছিলো।দরিদ্র পরিবারের হাল ধরতেই জুয়েল খুব কম বয়সেই জীবনযুদ্ধে নেমে পরে।ভালই চলছিল ছোট্র সংসার। মায়ের মুখে হাসি ফোটাতেই ছেলের এত সংগ্রাম।অথচ কিছু মানুষের টাকার প্রয়োজনের কাছে জীবন দিতে হলো জুয়েলকে। শুধু জুয়েল নয়,এর আগেও ওই একই জায়গায় কুড়িগ্রাম থেকে রাজারহাট আসার পথে সন্ত্রাসীদের হাতে পরেন এক অটোচালক। তাকেও কুপিয়ে হত্যা করে তার অটোটি ছিনতাই করে নিয়ে যায় দূর্বত্তরা।এই ঘটনায় মামলা হলেও পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।ওই এলাকার অনেকেই অভিযোগ করেছেন,পুলিশ এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত কিংবা অপরাধীদের গ্রেপ্তার না করায় দিনের পর দিন বেড়েই চলছে এসব অপরাধ। ঠাটমারী ব্রীজটি রাজারহাট থেকে কুড়িগ্রাম যাওয়ার পথে একটি ফাকা জায়গায় অবস্থিত। সেখানে একটি বদ্ধভূমিও আছে। এই জায়গাটার আসেপাশে তেমন কোনো বাড়িঘর না থাকায় অপরাধীরা রাস্তায় চলাচলকারী মানুষদের আটকিয়ে টাকা-পয়সা,মটর সাইকেলসহ নানান জিনিস কেড়ে নেয়। তবে পুলিশ সবকিছু জানার পরও কোনো এক অজানা কারণে এখানে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করছেনা।

এই মাসের ১৯ জানুয়ারী রাজারহাটের পূর্ব দেবোত্তর গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাইয়ের কাঁচির আঘাতে বড় ভাই খুন হয়েছেন। জমি বিরোধ মেটাতে ডাকা সালিশে প্রকাশ্যে ছোট ভাই আব্দুর রবের (৩৮) কাঁচির আঘাতে বড়ভাই আব্দুর রাজ্জাক (৪৮) খুন হন।

২০১৬ সালের ১৩ অক্টোবর রাজারহাটে রূপালী ব্যাংকের ঋণ কর্মকর্তার লাঠির আঘাতে এক সন্তানের জনক অজ্ঞাত যুবক (৩০) মামা শ্বশুরের বাড়িতে খুন হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউপির গতিয়াসাম এলাকায় বুধবার সন্ধ্যায়। পুলিশ ও সূত্রে জানা যায়, গতিয়াসাম এলাকার পালিত পিতা ওসমান আলীর পুত্র আব্দুল মালেকের বোন মর্জিনা বেগমের কন্যা সীমা (২৭) ঢাকায় একটি গার্মেন্টে চাকরি করতো। একই গার্মেন্টে কর্মরত কুমিল্লার বাসিন্দা খুন হওয়া যুবক অজ্ঞাত (৩০) এর সঙ্গে সীমার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং এক পর্যায়ে তারা দু’জন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। এরই মাঝে তাদের সংসারে একটি ৩ বছরের কন্যাসন্তান জন্ম নেয়। কিছুদিন সংসার করার পর বিবাদ শুরু হলে চাকরি ছেড়ে দিয়ে সীমা স্বামী সন্তান নিয়ে রংপুরের নাজিরের হাট এলাকায় তার পৈতৃক এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে।

গত কয়েকদিন ধরে আবারও দ্বন্দ্ব শুরু হলে সীমা তার মামা আবদুল মালেককে সংবাদ দিলে বুধবার দুপুরে ভাগনি ও জামাতাকে বাড়িতে নিয়ে আসে মালেক। প্রতিবেশী রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার বড়াই বাড়ি শাখায় রূপালী ব্যাংকের ঋণ কর্মকর্তা সাজু সরকার অজ্ঞাত ওই যুবককে বেধড়ক মারপিট শুরু করে। এক পর্যায়ে সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। টের পেয়ে কৌশলে ব্যাংক কর্মকর্তা সাজু সরকার এবং আবদুল মালেক ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়।

এর আগে চাকিরপশার ইউনিয়নের অর্জুনমিশ্র গ্রামে বিড়ি না দেওয়ায় মাকে খুন করেছে মাদকাসক্ত ছেলে। জানা যায়, রোকেয়া বেগম (৫২) সকালে রান্না করছিলেন। এ সময় তার মাদকাসক্ত ছেলে রেজাউল ইসলাম রেজা মায়ের কাছে বিড়ি চায়। বিড়ি দিতে অস্বীকৃতি জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে রেজা কুড়াল দিয়ে মায়ের মাথায় আঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় রোকেয়া বেগমকে হাসপাতালে আনার পথে তিনি মারা যান।

শুধু খুনই না রাজারহাটে সামগ্রিকভাবেই অপরাধ বেড়েই চলছে। কিছুদিন আগে ঘরিয়ালডাঙ্গা থেকে এক মেম্বারকে ই্য়াবাসহ আটক করেছিল পুলিশ। হারুন নামের ওই মেম্বার দীর্ঘ দিন যাবৎ ওই এলাকায় ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে আসছিল।

এছাড়াও বিজিবি সদস্যের স্ত্রীর পরিকিয়া নিয়েও এক লঙ্কা কান্ড ঘটে গেল রাজারহাটে।

এসব ঘটনা বিবেচনা করলে দেখা যায়,কেউ টাকার কারণে মানুষ খুন করছে,কেউ নেশা করা টাকা না পেয়ে মাকে পর্যন্ত খুন করছে।আবার ইয়াবার মত ভয়াবহ ব্যবসাও চলছে দেদারছে।কুড়িগ্রাম সীমান্ত এলাকা হওয়ায় মদ,গাজা,ফেন্সিডিলসহ নানান ধরণের মাদক সহজলভ্য হয়ে ওঠায় মানুষ মাদকাসক্ত হচ্ছে। আর এই নেশার টাকা না পেয়েই এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে বলেই অনেকে মনে করেন।

আমাদের থানা প্রশাসনের উচিত দ্রুত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করা এবং ঝুকিপূর্ণ জায়গাগুলো খুজে বের করে এসব জায়গায় পুলিশের টহল বাড়ানো। আর সর্বোপরী পরিবার থেকে শুরু করে সবখানে সচেতনতা বৃদ্ধি করলে এসব সমস্যা ধীরে ধীরে কমে আসবে বলে মনে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.