রাজারহাটে আগাম’বিনা-১৭’ জাতের ধানের বাম্পার ফলন

রাজারহাটে আগাম’বিনা-১৭’ জাতের ধানের বাম্পার ফলন

।। নিউজ ডেস্ক ।।

চলতি আমন মৌসুমে রাজারহাটে আগাম ‘বিনা-১৭’ জাতের ধান রোপন করে বাম্পার ফলন পেয়েছে কৃষকরা। এটি একটি আগাম জাতের ধান। এ জাতের ধান শুরু থেকে কাটা পর্যন্ত মোটা ১১০ দিন সময় লাগে।

এ ধান উত্তোলনের পর রবি ফসল সরিষা, আলু বেগুন, মূলাসহ বিভিন্ন শাক সবজির আবাদ করা যায়। পাশাপাশি অমৌসুমে ধান কাটায় গোখাদ্য হিসেবে ধানের খড়ের চাহিদা বাড়বে, সেই সাথে বেশী দামও পাবেন কৃষকরা। জুলাইয়ের শেষের দিকে ধান রোপন করে অক্টোবরের শেষের দিকে ঘরে ধান তোলা যায়। যা প্রায় একমাস আগেই বিনা-১৭ ধান উঠছে কৃষকের ঘরে।

তাই আগাম বিনা-১৭ জাতের ধান কৃষকরা রোপন করছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়। কারণ উচ্চ ফলনশীল হওয়ায় এবছর জাতটির ফলনও হয়েছে বেশ ভাল। কম সময়ে চাষ করা গেছে বলে খরচও হয়েছে অনেক কম। তাই বিনা উদ্ভাবিত স্বল্প সময়ের জাত বিনা-১৭ ধান এরই মধ্যে এ এলাকায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

রোববার (২৪ অক্টোবর) সরেজমিনে দেখা যায় এ জাতের ফলন একরে প্রায় ৬০-৭০ মণ। যা আমনে চাষ হওয়া অন্য গতানুগতিক জাতের চেয়ে একরে ১০-১৫ মণ বেশী। পাশাপাশি স্বল্প সময়ের কারণে দ্রুত ধান কেটে রবি শষ্যের চাষ করা যাচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলার সদর ইউনিয়নের কৃষক আলহাজ্ব ফজলুল হক মন্ডল (৬৫) বলেন, এ মৌসুমে দেড় একর জমিতে বিনা-১৭ জাতের ধান চাষ করেছি, আশাকরছি দেড় একর জমিতে ৯০-১০০ মণ ধান উৎপন্ন হবে। আর দু’একদিনের মধ্যে ঐ জমির বিনা-১৭ জাতের ধান কাটা পড়বে। এরপর আমি ঐ জমিতে আগাম আলু চাষ করে বোরো মৌসুমে ধান চাষ করব।

বিনা-১৭ ধান চাষে সেচ, সার, কীটনাশক ও ছত্রাকনাশক তুলনামূলক কম ব্যবহৃত হয়। বিনা-১৭ জাতের ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় এলাকার সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এই কৃষক। উপজেলা কৃষি অফিস জানান, রাজারহাট উপজেলায় এ বছর ১১হাজার ৫১৬ হেক্টর জমিতে আমনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর অর্জিত হবে ১১ হাজার ৪৭০ হেক্টর। এর মধ্যে প্রাথমিকভাবে বিনা-১৭ জাতের ধান চাষ হয়েছে প্রায় ২০ হেক্টর জমিতে। অক্টোবরের শেষ সপ্তাহের মধ্যে প্রায় সবগুলো এলাকায় শেষ হবে এ ধান কাটা।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সম্পা আকতার বলেন, বিনা ধান-১৭ জাতের ধানসহ বেশ কয়েকটি ধানের জাত রয়েছে। যেগুলো গতানুগতিক ধান চাষের একমাস আগে তোলা যায়। এ ধান ঘরে তুলেই তেল জাতীয় ফসল সরিষা, সূর্য্যমূখী সহ আগাম রবি শষ্য চাষ করা যায়। তাই এ জাতীয় ধান চাষ করতে উপজেলার কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

//নিউজ/রাজারহাট//এমএ মন্ডল এটম/অক্টোবর/ ২৪/২১

Leave a Reply

Your email address will not be published.